বিষয়: নজরুল সঙ্গীত
কালানুক্রমিক সংখ্যা: ২৬১
গান সংখ্যা: ২৩০৭
শিরোনাম : কারা-পাষায় ভেদি' জাগো নারায়ণ
পাঠ ও পাঠভেদ:
    রাগ: দরবারি কানাড়া
কারা-পাষাণ ভেদি' জাগো নারায়ণ।
কাঁদিছে বেদিতলে আর্ত জনগণ,
বন্ধ-ছেদন জাগো নারায়ণ॥
হত্যা-যূপে আজি শিশুর বলিদান,
অমৃত-পুত্রেরা মৃত্যু-ম্রিয়মাণ!
শোণিত-লেখা জাগে–নাহি কি ভগবান?
মৃত্যুক্ষুধা জাগে শিয়রে লেলিহান!
শঙ্কানাশন জাগো নারায়ণ॥
ক. রচনাকাল ও স্থান: গানটির রচনাকাল সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যায় না। ১৯৩০ খ্রিষ্টাব্দের ২৪শে ডিসেম্বর, মন্মথ রায় রচিত 'কারাগার' নাটকটি মঞ্চস্থ হয়েছিল 'মনোমোহন থিয়েটারে। এটি ব্যবহৃত হয়েছিল 'ধরিত্রী' চরিত্রের গান হিসেবে।

উল্লেখ্য, গানটি নাচঘর পত্রিকার ৩রা পৌষ ১৩৩৭ সংখ্যায় প্রকাশিত হয়েছিল। ডিসেম্বর মাসের শুরুর দিকেই নজরুল গানটি রচনা করেছিলেন এই নাটকের জন্য। মন্মথ রায় নাট্যগ্রন্থাবলী দ্বিতীয় খণ্ড [জগদ্ধাত্রী পূজা ১৩৫৮। ২৫শে নভেম্বর ১৯৫১। কারাগার] থেকে নাট্যকারের উক্তি থেকে জানা যায়- 'ধরিত্রীর গানগুলো শ্রীযুক্ত নজরুল ইসলাম রচনা করিয়াছেন।' এই নাটকের পঞ্চম অঙ্কের, প্রথম দৃশ্যে (এক) গানটি ব্যবহৃত হয়েছে 'চন্দনার  গান' হিসেবে। সে বিচারে ধরা যায় যে, গানটি নজরুলের নয়। কিন্তু নজরুলের তত্ত্বাবধানে প্রকাশিত তাঁর রচিত চন্দ্রবিন্দু'র প্রথম সংস্করণে [সেপ্টেম্বর ১৯৩১, আশ্বিন ১৩৩৮ বঙ্গাব্দ।] গানটি স্থান পেয়েছিল। তাই নাট্যকারে উক্তিকে সত্য বলে মেনে নেওয়া যায় না।
এই সময় নজরুলের বয়স ছিল ৩১ বৎসর।